jagannathpurpotrika-latest news

আজ, , ১৪ই এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

সংবাদ শিরোনাম :



চোর সন্দেহে যুবককে খুঁটিতে বেঁধে মারধর, হাসপাতালে মৃত্যু

ডেস্ক রিপোর্ট :: মোবাইল ফোন চোর সন্দেহে সোহান শেখ সাওয়াল (২৫) নামে এক বাস হেলপারকে ডেকে নিয়ে বৈদ্যুতিক খুঁটির সঙ্গে বেঁধে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ উঠেছে।

 

বগুড়ায় সদর উপজেলার এরুলিয়া ইউনিয়নের ছোট কুমিড়া পশ্চিমপাড়ায় বৃহস্পতিবার সকালে এ ঘটনা ঘটে। রাতে তিনি বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ (শজিমেক) হাসপাতালে মারা যান।

এ ব্যাপারে নিহতের বাবা সদর থানায় একই পরিবারের পাঁচজনের বিরুদ্ধে মামলা করেছেন। পুলিশ তিনজনকে গ্রেফতার করেছে। শুক্রবার বিকালে নিশিন্দারা উপশহর ফাঁড়ির ইনচার্জ ইন্সপেক্টর জালাল উদ্দিন এ তথ্য দিয়েছেন।

গ্রেফতার আসামিরা হলেন- সদর উপজেলার এরুলিয়া ইউনিয়নের ছোট কুমিড়া পশ্চিমপাড়ার মৃত মহির উদ্দিনের ছেলে রেজাউল করিম (৫৫), তার স্ত্রী শানু আকতার (৪৫) ও মেয়ে মুন আকতার (১৯)।

 

স্থানীয়রা জানান, সোহান শেখ সাওয়াল একই গ্রামের আইজুল হকের ছেলে। তিনি পেশায় বাসের হেলপার ছিলেন। সাওয়াল প্রায়ই প্রতিবেশী মাদকসেবী রেজাউল করিমের বাড়িতে মাদক সেবন করতে যেতেন। কয়েক দিন আগে রেজাউলের বাড়ি থেকে মোবাইল ফোন চুরি হয়। এজন্য সাওয়ালকে সন্দেহ করা হয়। রেজাউল বৃহস্পতিবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে সাওয়ালকে বাড়ি থেকে ডেকে আনেন। তাকে তার চুরি যাওয়া ফোন ফিরে দিতে চাপ দেওয়া হয়। চুরির কথা অস্বীকার করায় রেজাউল ও তার পরিবারের সদস্যরা সাওয়ালকে বাড়ির পাশে একটি বৈদ্যুতিক খুঁটির সঙ্গে বেঁধে ফেলে। এরপর সবাই মিলে তাকে লাঠিসোটা দিয়ে পিটিয়ে গুরুতর আহত করেন। স্থানীয়রা তাকে (সাওয়াল) উদ্ধার করে বগুড়া শজিমেক হাসপাতালে ভর্তি করেন। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রাত সাড়ে ১১টার দিকে তিনি মারা যান।

 

নিশিন্দারা উপশহর পুলিশ ফাঁড়ির এসআই জামাল উদ্দিন বলেন, সাওয়ালের লাশ উদ্ধার করে ওই হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়। এ ব্যাপারে নিহতের বাবা আইজুল হক রেজাউল করিম, তার স্ত্রী শানু আকতার, মেয়ে মুন আকতার ও তাদের আরও দুই ছেলে-মেয়ের বিরুদ্ধে হত্যা মামলা করেন। এজাহারে পূর্বশত্রুতার জেরে তার ছেলেকে বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে বৈদ্যুতিক খুঁটির সঙ্গে বেঁধে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ আনা হয়েছে। পুলিশ তাৎক্ষণিকভাবে রেজাউল, শানু ও মুনকে গ্রেফতার করে। অন্য আসামি দুই ভাইবোনকে গ্রেফতারে অভিযান চলছে।

এখানে ক্লিক করে শেয়ার করুণ