jagannathpurpotrika-latest news

আজ, , ১৪ই এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

সংবাদ শিরোনাম :



নবজাতক নিয়ে এসএসসি পরীক্ষায় অংশ নিলেন দুই পরীক্ষার্থী

ডেস্ক রিপোর্ট :: এসএসসি পরীক্ষা শুরুর ২ মাস আগে মহসিনা আখতার ও ১৬ দিন আগে শান্তনা আখতার স্মৃতি মা হয়েছেন। সদ্য জন্ম নেওয়া ওই দুই শিশুকে নিয়ে এসএসসি পরীক্ষায় অংশ নিয়েছে তারা। জয়পুরহাটের ক্ষেতলালে কেন্দ্রের ভিতরে পরীক্ষার শুরু থেকে শেষপর্যন্ত আলাদা রুমে শিশু দুটি কোলে নিয়ে বসে থাকতে দেখা গেছে দুই বালিকাকে।

 

সরেজমিন জানা যায়, বৃহস্পতিবার ক্ষেতলাল উপজেলা সদরের সরকারি পাইলট উচ্চ বিদ্যালয় ও কলেজ কেন্দ্রে এসএসসি (ভোকেশনাল শাখা) পরীক্ষার বাংলা প্রথমপত্র পরীক্ষা হয়। পরীক্ষা চলাকালে কেন্দ্রের ভিতর আলাদা রুমে ছোট্ট দুই শিশু কোলে নিয়ে বসে থাকতে দেখা যায় দুই তরুণীকে।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, শিশু দুটির একজন পরীক্ষার দুই মাস আগে ও অপরজন ১৬ দিন আগে জন্ম নেয়। মা পরীক্ষার হলে পরীক্ষা দিচ্ছে আর শিশু দুটির স্বজন তাদের কোলে নিয়ে বসে আছে কেন্দ্রের ভিতরে আলাদা রুমে। ১৬ দিন আগে জন্ম নেওয়া শিশুটির মা শান্তনা আখতার স্মৃতি উপজেলার আখলাশ শিবপুর শ্যামপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের এসএসসি ভোকেশনাল শাখার শিক্ষার্থী। পরীক্ষার ২ মাস আগে জন্ম নেওয়া শিশুটির মা মহসিনা আখতার উপজেলার বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় ও কলেজের এসএসসি ভোকেশনাল শাখার শিক্ষার্থী।

মহসিনা আখতার বলেন, পরীক্ষা শুরুর ২ মাস আগে আমার সন্তান হয়েছে। এ অবস্থায় আমি পরীক্ষা দিচ্ছি। অনেক সময় ধরে পরীক্ষা দিতে হয় তাই বাচ্চাকে বাড়িতে না রেখে সঙ্গে নিয়ে পরীক্ষা দিতে এসেছি। কেন্দ্র সচিবের অনুমতিসাপেক্ষে আমার ছোট বোন বাচ্চাকে নিয়ে কেন্দ্রের আলাদা রুমে বসে আছেন।

কেন্দ্রের সচিব অধ্যক্ষ এমেলী আখতার বানু জানান, দুই পরীক্ষার্থী দুই মাস ও ১৬ দিন আগে জন্ম নেওয়া দুই শিশুকে নিয়ে এসএসসি পরীক্ষায় অংশ নিয়েছে। ওই প্রতিষ্ঠান প্রধানের লিখিত আবেদনে আমরা বিষয়টি জেনেছি। পরীক্ষা কেন্দ্রের নিয়ম মেনে তার পরীক্ষা গ্রহণের সব ব্যবস্থা করা হয়েছে।

ক্ষেতলাল উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার ছফিউল্লাহ সরকার বলেন, ওই প্রতিষ্ঠান প্রধান ও কেন্দ্র সচিবের মাধ্যমে ঘটনাটি জেনেছি। সদ্য জন্ম নেওয়া শিশুকে রেখে দুইজন মেয়ে পরীক্ষায় অংশ নিয়েছে বিষয়টি জেনে তাকে পরীক্ষা কেন্দ্রের নিয়ম অনুযায়ী সব ব্যবস্থা করে দিয়েছি। এটি মেয়েদের জন্য অনুপ্রেরণা হবে।

এখানে ক্লিক করে শেয়ার করুণ